শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৪:৪৯ অপরাহ্ন

হাজীগঞ্জ নিখোঁজের এক সপ্তাহ পর কিশোরের গলিত লাশ উদ্ধার

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৩৪৭ বার পঠিত
আপডেট : সোমবার, ৬ নভেম্বর, ২০২৩, ৭:০৯ অপরাহ্ণ

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্, হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর), প্রতিনিধি,
চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে নিখোঁজের এক সপ্তাহ পর মো. আরমান হোসেন (১৫) নামের এক কিশোরের গলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় হাজীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের দোয়ালিয়া পূর্বপাড়া আমগাছ তলায় নামক স্থানে সড়কের পাশে বালুর স্তুফের নিচ থেকে গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।
এর আগে গত ৩০ অক্টোবর সোমবার দুপুরে মিশুক (অটোরিকশা) নিয়ে নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয় আরমান হোসেন। সে হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন ৪নং ওয়ার্ড মকিমাবাদ গ্রামের মেস্তুরি বাড়ির মো. আব্দুল মোতালেব দ্বিতীয় ঘরের বড় ছেলে। সে অটোরিকশা চালিয়ে বাবা-মা ও ছোট দুই ভাইসহ জীবিকা নির্বাহ করতো।
জানা গেছে, গত সোমবার রাতে আরমান নিখোঁজ হয়। এরপর আশপাশের বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তাঁর সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে বুধবার হাজীগঞ্জ থানায় নিখোঁজ ডায়েরী (নং-৪৫) করে তার বাবা। আজ (সোমবার) বিকালেই ইউনিয়নের দোয়ালিয়া গ্রামের হাজীগঞ্জ-পিরোজপুর সড়ক পাশে বালুর স্তুফ থেকে দুর্ঘন্ধ বের হয়।
লোকমুখে বিষয়টি জানতে পেরে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তফা আহমেদ পুলিশকে খবর দেন। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ সার্কেল) পংকজ কুমার দে ও হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বালুর স্তুফের নিচ থেকে গলিত মরদেহটি উদ্ধার করে।
খবর পেয়ে নিখোঁজের বাবা আব্দুল মোতালেব ও মা পাখি বেগমসহ পরিবারের অন্যান্য লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এসে জুতা ও পরনের প্যান্ট দেখে আরমানের লাশ সনাক্ত করে। পুলিশ তাৎখনিক সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চাঁদপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
ধারণা করা হচ্ছে, আরমানকে হত্যা করে লাশটি বালুর নিচে চাপা দিয়ে অটোরিকশাটি নিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় তাঁর বাবা আব্দুল মোতালেব বলেন, আমার ছেলেকে মেরে ফেলা হয়েছে। আমার নিরীহ ছেলেকে কে বা কারা হত্যা করেছে তা পুলিশ তদন্ত করে বের করুক। আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই।’
তিনি আরো বলেন, পারিবারিকভাবে কারও সঙ্গে আমাদের কোনো শত্রুতা নেই। কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, তা আমরা জানি না। ঘটনা তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের বিচার চাই।

এ ব্যাপারে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, কিশোর আরমানকে হত্যা করা হয়েছে। তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর