বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন

ফরিদগঞ্জের রূপসায় জনতার হাতে বিদ্যুতের ৫কর্মকর্তা অবরুদ্ধ

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ১১৮ বার পঠিত
আপডেট : সোমবার, ২০ জুন, ২০২২, ৮:২৫ অপরাহ্ণ

 

 

 

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

ফরিদগঞ্জে বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম সহ অবরুদ্ধ অবস্থায় থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে উপজেলার ১৫নং রূপসা উত্তর ইউনিয়নে ঐতিহ্যবাহী রুপসা বাজারে বিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিং এর প্রতিবাদে আজ সোমবার সকাল দশটায় রূপসা এলাকা বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করতে গেলে স্থানীয় জনতা ও ব্যবসায়ীরা এজিএম কম সহ কয়েকজনকে আটক করে

পরবর্তীতে স্থানীয় জনতার রোষানলে পড়ে তাদেরকে স্থানীয় জনতার কাছ থেকে উদ্ধার করে সৈয়দ মেহেদী হাসান চৌধুরীর বাড়িতে রাখা হয়। পরবর্তীতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে স্থানীয় জনতার রোষানলে থেকে রক্ষা পেয়ে তারা ফরিদগঞ্জ থানার এস আই একরামুল ইসলামের নেতৃত্বে ফরিদগঞ্জে চলে আসে।

এসময় স্থানীয় ক্ষুব্ধ জনতার একত্রিত হয়ে বলেন, অসহনীয় বিদ্যুতের লোডশেডিং এর বিষয়ে জানতে চাইলে জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম এলাকার লোকজনের সাথে খারাপ আচরণ করে এবং বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধমকি দেয় যার কারণে ক্ষুব্ধ জনতা তাদেরকে কয়েক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে এবং ফরিদগঞ্জে বর্তমান ডিজি এম আসার পর থেকেই ব্যাপক অসহনীয় লোডশেডিং লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যা আগে ছিল না। বারবার অভিযোগ দিয়েও কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি।এ সময় তারা একযোগে বর্তমান ডিজি এম এর অপসারণ দাবি করেন।

স্থানীয় আমিরুল ইসলাম পাটোয়ারী জানান, গত এক সপ্তাহ যাবত প্রতিদিন গড়ে ১থেকে দেড় ঘন্টা বিদ্যুৎ পাচ্ছে না রুপসা বাসি। তিনি আরো বলেন বিদ্যুতের এই অসহনীয় লোডশেডিং এর কারণে ব্যবসায়ীরা তাদের  ব্যবসা নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। পাশাপাশি সকল স্টেশনারি ব্যবসায়ীদের প্রতিষ্ঠানে ফ্রিজের মালামাল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ।

রুপসা বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি ফারুক খান জানান, রুপসা এলাকায় প্রতিনিয়ত লোডশেডিংয়ের কারণে ব্যবসায়ীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বিদ্যুৎ অফিসের কয়েকজনকে সকালবেলায় আটকে রেখেছে। খবর পেয়ে আমি গিয়ে ব‍্যাপারটা মীমাংসা করে দিয়েছি।
বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে রুপসা এলাকায় আগামী দিনে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দিবে এবং জাতীয় গ্রেড থেকে প্রাপ্ত বিদ্যুৎ পুরো উপজেলায় সমপরিমাণ বন্টন করা হবে। তিনি আরো বলেন বিদ্যুতের স্থানীয় ঠিকাদার মোঃ আজাদ মিয়া সহ এসে বিদ্যুৎ অফিসের লোকজনকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়েছে।

ব্যবসায়ী আজাদ মিয়া বলেন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে সৈয়দ মেহেদী হাসান চৌধুরীর সহযোগিতায় পল্লী বিদ্যুতের লোকজনকে নিরাপদ স্থানে রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার এস আই একরামুল ইসলাম বলেন জনতা বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন কে আটকে রেখেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়েছে।

এজিএম কম রায়হানুল ইসলাম বলেন আমার পল্লী বিদ্যুতের দুজন কর্মীকে আটক করার খবর পেয়ে আমিসহ আরো দুইজন ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় জনতার রোষানলে পড়তে হয়েছে। পরবর্তীতে আমরা প্রশাসনকে বিষয়টি অবগত করলে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়।

এ ঘটনায় ফরিদগঞ্জের বর্তমান ডিজি এম এর সাথে বারবার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর