সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :

অতিমাত্রায় বৃষ্টি হলে ঢাকাও প্লাবিত হতে পারে: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৬৭ বার পঠিত
আপডেট : রবিবার, ১৯ জুন, ২০২২, ৯:৩৮ অপরাহ্ণ


স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, অনেক বেশি বৃষ্টি হলে এবং উঁচু অঞ্চল থেকে অতিমাত্রায় পানি প্রবাহিত হলে ঢাকাও প্লাবিত হতে পারে। বন্যা কোন পর্যায়ে যেতে পারে তার পূর্বাভাস কোনো প্রতিষ্ঠান আমাদের দেয়নি। তবে একটা আগাম সতর্কতা আছে। সেটা কোন পর্যায়ে যাবে, তা বলা হয়নি।

রোববার (১৯ (জুন) সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলনে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকের শুরুতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। আন্তঃমন্ত্রণালয়ের তৃতীয় বৈঠকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন কার্যক্রম পর্যালোচনা এবং ডেঙ্গু ও অন্যান্য মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে করণীয় নিয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

জলাবদ্ধতা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নিম্নাঞ্চলটা দ্রুত প্লাবিত হয়। আমরা এখনো সব কাজ করে ফেলতে পেরেছি, তা নয়। কিছু খাল দখলমুক্ত করা হয়েছে। উদ্ধার কাজ চলমান আছে। সিটি করপোরেশনে নতুন অন্তর্ভুক্ত ওয়ার্ডগুলো বেশিরভাগই নিম্নাঞ্চলে। সেখানে অবকাঠামোগত সমস্যা আছে, যা নিরসনে চার হাজার কোটি টাকারও বেশি বরাদ্দ দিয়ে একটি প্রকল্প অনুমোদন করা হয়েছে। কাজ চলমান রয়েছে, শেষ হলে সেখানকার অনেক উন্নতি হবে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালে সবাইকে মোবাইলে থেকে দেখানো হয়েছে সিঙ্গাপুরে কীভাবে পুরো প্লাবিত হয়েছে। সেখানে গাড়িগুলো নৌকার মতো ভাসছিল। এরকম পরিস্থিতি পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় দেখেছি। নিউইয়র্কে দেখেছি, সাবওয়েতে পানি ঢুকে গেছে। নিউইয়র্কও কিন্তু প্লাবিত হয়েছে। প্রাকৃতিক বিষয়ে তো কেউই প্রস্তুত থাকে না। তবে আমরা আমাদের প্রস্তুতি নিয়ে রাখছি।

তাজুল ইসলাম আরও বলেন, মাঝে-মধ্যে আমরা কখনো কখনো দুর্যোগ মোকাবেলা করি। এবারও আমাদের কিছু কিছু অঞ্চল জলাবদ্ধ হয়েছে। প্লাবিত হওয়ার কারণে মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর ন্য প্রধানমন্ত্রী তাৎক্ষণিক সব প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দিয়েছেন। সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, কোস্ট গার্ড, পুলিশ, জনপ্রতিনিধিসহ সবাই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দুর্যোগে আক্রান্ত এলাকায় মানুষের পাশে সর্বাত্মকভাবে দাঁড়িয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফরিদপুর বাসা খোঁজা মেয়ে ব্যাচেলরদের জন্য ‘মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল নিজস্ব প্রতিবেদক : ফরিদপুর বাসা খোঁজা মেয়ে ব্যাচেলরদের জন্য ‘মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল এন্ড মাতৃছায়া ভিআইপি ছাত্রী হোস্টেল। নানা ঝামেলার কারণে বাসা পাওয়া থেকে শুরু করে খাওয়া-দাওয়ার অসুবিধায় পড়তে হয় ফরিদপুর শহরের ব্যাচেলর মেয়েদের। বিশেষ করে মফস্বল থেকে ফরিদপুর শহরে পড়াশোনা অথবা চাকরির জন্য আসা ব্যাচেলর মেয়েদের থাকার জায়গা বা বাসা ভাড়া নিয়ে এটা দীর্ঘদিনের সমস্যা। নানা কারণে তাদের কাছে বাসা ভাড়া যেন সোনার হরিণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই বিপদ থেকে রক্ষা পেতে এখন ই যোগাযোগ করুন মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল, ফরিদপুর শহরে পুরাতন পাসপোর্ট অফিস মোড়,ঝিলটুলী,মোবাইলঃ ০১৭৯১-১৯৪৩৯৪। মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল এন্ড মাতৃছায়া ভিআইপি ছাত্রী হোস্টেল দীর্ঘ ৯ বছর ধরে সুনামের সঙ্গে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। “মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল এন্ড মাতৃছায়া ভিআইপি ছাত্রী হোস্টেল এটি সম্পুর্ণ মহিলা দ্বারা পরিচালিত” এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে আছেন মিসেস আফরোজা জনি। মাত্ছায়া ছাত্রী হোস্টেল এন্ড মাতৃছায়া ভিআইপি ছাত্রী হোস্টেলে ছাত্রী ও চাকরিজীবী মহিলা ব্যাচেলরদের জন্য রয়েছে শীততাপ নিয়ন্ত্রিত রুম, তিনবেলা স্বাস্থ্যকর খাবার, এবং কাপড় ধোঁয়ার জন্য সুব্যবস্থা , হাইস্পিড ইন্টারনেট, এলইডি টিভি, কমনরুম ও ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তা,সহ ২৫ টিরও অধিক সুবিধা রয়েছে। এতে নরমাল রুম ভাড়া ৩ হাজার ৯৯৯ টাকা এবং ভিআইপি রুম ৭ হাজার ৯৯৯ টাকায় ব্যাচেলর মহিলা’রা থাকার সুযোগ পাবেন। মিসেস আফরোজা জনি বলেন ‘ব্যাচেলর মহিলাদের দুর্বিষহ জীবন থেকে রক্ষা করতে জাতীয় মানের হোস্টেল মাত্ছায়া ছাত্রী হোস্টেল এন্ড মাতৃছায়া ভিআইপি ছাত্রী হোস্টেল দীর্ঘ ৯ বছর সুনামের সঙ্গে চালু করে আসছি’ মিসেস আফরোজা জনি, আরও বলেন, ‘এখানে না আছে বাজার করার দুশ্চিন্তা, না আছে কাপড় ধোয়ার চিন্তা। এমনকি বাসা পরিবর্তনের ঝামেলাও পোহাতে হবে না। একটি ফর্ম পূরণের মাধ্যমেই খুব সহজে মাত্ছায়া ছাত্রী হোস্টেল এন্ড মাতৃছায়া ভিআইপি ছাত্রী হোস্টেল এ থাকতে পারবে। বিঃদ্রঃ “মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল এর পক্ষ থেকে পরীক্ষার্থী ছাত্রীদের জন্য এক বিশেষ ছাড় ” যে সকল ছাত্রী পরীক্ষা দেওয়ার জন্য হোস্টেল থাকার চিন্তা করছেন তাদের জন্য এক মাস বা পরীক্ষার এই সময় টা মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেলে থেকে পরীক্ষা দিতে পারবেন এবং সেই সাথে সকল ধরনের সুবিধা ও পাবেন। অনার্স ১ম বর্ষের এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছাত্রীদের কথা চিন্তা করে এমন সুযোগ সুবিধা ব্যবস্থা করছেন বলে জানিয়েছেন মাতৃছায়া ছাত্রী হোস্টেল কতৃপক্ষ।

এক ক্লিকে বিভাগের খবর