রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০২:২১ পূর্বাহ্ন

উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন দেখছে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী অদম্য পলাশ

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৯৪ বার পঠিত
আপডেট : শুক্রবার, ৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৯:০৬ অপরাহ্ণ

অদম্য ইচ্ছাশক্তিই পারে একজন মানুষকে তার কাঙ্খিত স্বপ্নলোকে পৌঁছে দিতে। সেই ইচ্ছাশক্তির জোরেই চোখের ক্ষয়িষ্ণু দৃষ্টিতেও অনেক বড় স্বপ্ন দেখেছে চাঁদপুরের দৃষ্টি প্রতিবন্ধি পলাশ দে (২২)।

চাঁদপুর পুরানবাজার ডিগ্রী কলেজের এই মেধাবী শিক্ষার্থী চলতি বছরে এইচএসসি দিয়েছেন ১০ম শ্রেণী পড়ুয়া শ্রুতি লেখকের সহযোগিতায়।

অদম্য ইচ্ছাশক্তি দিয়ে পলাশ জয় করতে চান নিজের স্বপ্নকে। কিন্তু তার এই স্বপ্নযাত্রায় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে দৃষ্টিশক্তি। দারিদ্র্যতা আর অর্থের অভাবে চোখের চিকিৎসা করাতে না পেরে চিরতরে অন্ধ হতে চলেছে উচ্চ শিক্ষার স্বপ্ন দেখা অদম্য পলাশ।

তাঁর চোখের আলো ধরে রাখতে প্রয়োজন দ্রুততম সময়ে উন্নত চিকিৎসা। অথচ মেঘনার ভাঙনে ভিটেমাটি হারা বাদাম বিক্রেতা পিতার সেরকম সামর্থ্য নেই।

এ অবস্থায় মেধাবী পলাশের দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেতে আর্থিক সাহায্য খুব প্রয়োজন। অসহায় পলাশ তাই প্রধানমন্ত্রী এবং সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহযোগীতা চেয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার হরিসভা মন্দির এলাকায় বাপের ভিটেবাড়িতেই বসবাস ছিলো পলাশদের।
বেশ কয়েক বছর আগে মেঘনার ভাঙনে বসতভিটে হারিয়ে তার পরিবারসহ ঠাঁই নেয় শহরের নতুন বাজার ঘোষপাড়া এলাকায় একটি ভাড়া বাসায়।

পলাশের পিতা শ্যামল দে পেশায় একজন বাদাম বিক্রেতা। পিঠের একমাত্র বড় ভাই হাতের বই খাতা রেখে ছোটখাট কাজ করে সংসারের হাল ধরতে বাবাকে সহযোগীতা করছেন। জন্ম থেকে বামচোখে সমস্যা থাকা পলাশ নিজে নিজেই এসএসসি পাশ করেছেন।

এদিকে গেল ২ বছরে করোনার অদৃশ্য থাবার অনেকের মতো পলাশের বাবার বাদম বিক্রির কাজেও কিছুটা ভাটা পড়েছে। এর ফলে গেল দুই বছর খাবার কিনতে গিয়ে পলাশের চোখের চিকিৎসা করানো সম্ভব হয়নি। যার ফলশ্রুতিতে বাম চোখের সাথে সাথে ডান চোখে দৃষ্টিও ক্ষয়িষ্ণু হতে চলেছে। হারাতে বসেছে তার দুই চোখের দৃষ্টি।

ঢাকা, কুমিল্লা এবং চট্টগ্রামের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার চোখের দৃষ্টি ফিরে পেতে উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। আর জন্য যেতে হবে ভারতে। এ অবস্থায় সাহায্য ছাড়া পলাশের চোখের চিকিৎসা প্রায় অসম্ভব।

তাই নিজের পড়ালেখা আর চোখের দৃষ্টি ধরে রাখতে পলাশ প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্য চেয়েছেন। যে সাহাস্যে পেলে পলাশ চোখের চিকিৎসা করাতে পারবে।

পলাশকে সহায়তা পাঠানোর (তার নিজের) ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং বিকাশ ও নগদ নম্বর হলো: ডাচবাংলা ব্যাংক 24215111574 || নগদ ও বিকাশ নাম্বার (পার্সনাল) 01638510050।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর