রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
আওয়ামী লীগ দলীয় সম্ভাব‍্য চেয়ারম্যান প্রার্থী আলী আক্কাছ পাটোয়ারীর পক্ষে গন জোয়ার বেনাপোলে ককটেল বিষ্ফোরনে তিন যুবক গুরুত্বপূর্ণ আহত ভাঙা পা নিয়ে শুটিং করে শয্যাশায়ী অঙ্কুশ যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে গোলাগুলি, হতাহত ৮ রোহিঙ্গা ক্যাম্প কার নিয়ন্ত্রণে? বাকেরগঞ্জে জমিসংক্রান্ত বিরোধে যুবক খুন হাজীগঞ্জে ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির পরিদর্শণ করলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ । জঙ্গিবাদের তকমা আর মৌলবাদের উত্থানের কথা বলে দীর্ঘ সময় সরকারে থাকতে চায় আ’লীগ — বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায় চাঁদপুরে পিবিআই’ র প্রেস ব্রিপিং শাহরাস্তিতে চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের রহস্য উদঘাটন চাঁদপুর ড্যাফোডিলে  নিসচার উদ্ভুদ্ধকরণ সভা        টিভিতে আজকের খেলা

চাকরির কথা বলে ডেকে নিয়ে গন ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৬৯ বার পঠিত
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:২৮ পূর্বাহ্ণ

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় চাকরির দেওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে এক নারীকে কয়েকজন মিলে ধর্ষণে করেছে । মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) উপজেলার আসমানখালি বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভুক্তোভোগী নারী বাদী হয়ে আলমডাঙ্গায় থানায় সাতজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও একজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। ওই দিন রাতেই অভিযান চালিয়ে প্রধান অভিযুক্ত মুলাম হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মামলার আসামিরা হলেন আলমডাঙ্গা উপজেলার শালিকা গ্রামের আবু ছদ্দিনের ছেলে মুলাম হোসেন (৫০), বন্দরভিটা গ্রামের মৃত সন্টুর ছেলে রিপন ওরফে লিপন (৩৫), শালিকা গ্রামের বারেক আলীর ছেলে হাসান (৪০), জসিম উদ্দিনের ছেলে নাজিরুল (২৫), মহেশপুর গ্রামের মৃত তপেল বিশ্বাসের ছেলে হাবু (৪২), নান্দবার গ্রামের মান্নানের ছেলে হামিদুল (৩৪) ও আসমানখালী গ্রামের মনসের আলীর ছেলে মিজানুর কলুসহ অজ্ঞাত আরও একজন।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, স্বামীর সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে ১২ বছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতে থাকতেন ওই নারী। সংসারে অভাব-অনটনের কারণে মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। পূর্বপরিচিত আলমডাঙ্গা উপজেলার আসমানখালি গ্রামের মৃত মনসেরের ছেলে মিজানুর কালুকে অভাব-অনটনের কথা জানিয়ে একটি চাকরির সন্ধান দিতে অনুরোধ করেন।

সেই সুবাদে গত মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ওই নারীকে আলমডাঙ্গা উপজেলার আসমানখালি বাজারে আসতে বলেন মিজানুর। পরে বাজারে আব্দুর রশিদের দোতলা বাড়ির একটি কক্ষে নিয়ে মুলাম হোসেনের সহযোগিতায় তাকে ধর্ষণ করেন। এরপর সাতজন ও অজ্ঞাতনামা একজন তাকে ধর্ষণ করে তাকে ফেলে চলে যায়। সেখান থেকে পালিয়ে বাড়িতে চলে যান তিনি। পরে আসামিরা আসামিরা তাকে টাকা দিয়ে মীমাংসা করার চেষ্টা করে।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবির ঢাকা পোস্টকে বলেন, বুধবার সন্ধ্যার দিকে গণধর্ষণের শিকার ওই নারী একটি মামলা করেছেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে মুলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে। বৃহস্পতিবার (আজ) ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে বলে জানান তিনি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর