বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৬:১৭ অপরাহ্ন

মেসি জাদুতে ইউএস ওপেনের ফাইনালে মায়ামি

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৭৩৪ বার পঠিত
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০২৩, ১০:২৯ পূর্বাহ্ণ

দুর্দান্ত এক প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে ইউএস ওপেনের ফাইনালে উঠেছে ইন্টার মায়ামি। হারতে বসা এক ম্যাচে জয় এনে দেওয়ার মূল নায়ক গোলরক্ষক ড্রেক ক্যালেন্ডার হলেও নেপথ্যের নায়ক লিওনেল মেসি।

মেসি ম্যাচের যোগ করা সময়ে যে গোলটি বানিয়ে দিয়েছেন তা ছিল অবিশ্বাস্য। আর্জেন্টাইন অধিনায়কের বানিয়ে দেওয়া গোলেই যে ফাইনালে উঠার সুযোগ পেয়েছে মায়ামি। তা না হলে সিনসিনাটির কাছে হেরেই শেষ চারে বিদায় নিতে হতো তাঁদের।

২–১ গোলে তখন পিছিয়ে মায়ামি। ম্যাচ শেষ হওয়ার আর দুই মিনিট বাকি। ঠিক এই সময়েই প্রতিপক্ষের মুখ থেকে জয় ছিনিয়ে নিয়ে মায়ামিকে সমতায় ফেরালেন লিওনার্দো কাম্পানা। মায়ামি ফরোয়ার্ডের গোলটি ছিল মুখে চামচ তুলে দেওয়ার মতো। বাঁ প্রান্ত থেকে মেসির নিখুঁত  ক্রসে শুধু মাথাটাই লাগাতে হলো কাম্পানার।

এর আগে সেমির ম্যাচে ১৮ মিনিটে এগিয়ে যায় সিনসিনাটি। দলকে এগিয়ে দেন লুসিয়ানো অ্যাকোস্তো। বিরতির পর লিড দ্বিগুণ করে সিনসিনাটি। এবার ৫৩ মিনিটে গোল করেন ব্রান্ডন ভাসকেজ। সেখানে থেকে গোল শোধ করতে মরিয়া মায়ামি ব্যবধান কমায় ৬৮ মিনিটে। প্রথম গোলের নায়ক ও সহায়তাকারীও একই। মেসির ফ্রি কিকে হেডে গোল করেন কাম্পানা। নির্ধারিত সময়ের শেষ মুহূর্তে সমতায় ফেরানো গোলটিও তাঁদের যুগলবন্দীতে।

সমতায় ফেরার পর ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানেও নাটকীয়তার অনেক কিছু বাকি। অতিরিক্ত খেলা শুরুর ৩ মিনিটের মাথায় দলকে গোল এনে দিয়ে নায়ক বনে যাচ্ছিলেন ৭৮ মিনিটে বদলি নামা জোসেফ মার্তিনেজ। বেঞ্জামিন ক্রেমাশির পাস থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোলটি করেছিলেন তিনি। প্রতিপক্ষের মতোই যখন জয় উদ্‌যাপনের জন্য প্রস্তুত মায়ামি ঠিক তখনই সকলকে স্তব্ধ করে দিলেন সিনসিনাটির মিডফিল্ডার ইয়ুয়া কুবো। ম্যাচের ১১৪ মিনিটে বাঁকানো শটে গোল করেন জাপানি মিডফিল্ডার।

এতে ৩–৩ সমতায় ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ হয় টাইব্রেকারে। কিছুদিন আগে ন্যাশভিলকে টাইব্রেকারে হারিয়ে প্রথম শিরোপা জিতেছিল মায়ামি। আজ ভাগ্য তাদের পাশে ছিল। ৫–৪ ম্যাচ জিতে যায় মায়ামি। সিনসিনাটির প্রথম ৪ শটের লক্ষ্যভেদের মতো মায়ামিরও একই ফল। এমন সমীকরণের সময় নিক হ্যাগল্যান্ডের শট রুখে দেন মায়ামির গোলরক্ষক ক্যালেন্ডার। শেষ শটে দলকে ম্যাচ জেতান ক্রেমাশি। এতে করে দ্বিতীয় কোনো শিরোপা জয়ের সুযোগ পাচ্ছে মায়ামি। ইউএস ওপেন কাপের ফাইনাল হবে ২৭ সেপ্টেম্বর। সেদিন মেসিরা প্রতিপক্ষ হিসেবে হিউস্টন ডায়নামো–রিয়াল সল্ট লেকের মধ্যে জয়ী দলকে পাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর