মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
সভাপতি কামরুজ্জামান মিন্টু, সম্পাদক জেড. এম আনোয়ার….. শাহরাস্তি উপজেলা আওয়ামীলীগের এি- বার্ষিক সন্মেলন সম্পন্ন ফরিদগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকা  চার নাম্বারে, আনারসের জয় শাহরাস্তির সূচীপাড়া উওর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের এি- বার্ষিক সন্মেলন সম্পন্ন সচল হচ্ছে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের দুর্নীতি মামলা বাস থেকে ৬৩৭ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার, ভারতীয় নাগরিকসহ আটক ১২ মতলবে ট্রাক-অটোরিকশা সংর্ঘষে নারী নিহত দেশের ২৩ জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক টিকে থাকতে আর্থিক সহায়তা চান কারুশিল্পের উদ্যোক্তারা পর্তুগালে ব্যাপক ধরপাকড়, ৩৫ মানবপাচারকারী গ্রেপ্তার শাহরাস্তির  রায়শ্রী দক্ষিন   ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের এি- বার্ষিক সন্মেলন সম্পন্ন

ফরিদগঞ্জে বাড়ছে সূর্যমুখী চাষ, স্বাবলম্বী হচ্ছে চাষীরা

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ১১২ বার পঠিত
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২২, ১২:২৩ অপরাহ্ণ

 

মোঃ শাখাওয়াত হোসেন মিন্টুঃ

ক্যান্সার ও হৃদরোগ প্রতিরোধী অধিক পুষ্টিগুণ সম্পন্ন সূর্যমুখী ফুল চাষ দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ফরিদগঞ্জ উপজেলায়। কম খরচে আর স্বল্প সময়ে অধিক লাভ হওয়ায় খুশি চাষীরা। আর সূর্যমুখী ফুল চাষে সহযোগিতা করছে স্হানীয় কৃষি অফিস। সূর্যমুখী ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে দর্শনার্থীরা ছুটে আসছেন। ফলে উপজেলান ভিবিন্ন এলাকায় দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠেছে। বাগানে আসছে বিভিন্ন বয়সের ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। উপভোগ করছে ফুলে অপরূপ সৌন্দর্য।ক্যান্সার ও হৃদরোগ প্রতিরোধী অধিক পুষ্টিগুণ সম্পন্ন সূর্যমুখীর তেল অন্যান্য সাধারণ তেলের চাইতে একটু আলাদা। সূর্যমুখী তেলে থাকা ম্যাগনেসিয়াম আমাদের মানসিক চাপ দূর করে। এককথায় সূর্যমুখী তেলে মানবদেহের মহাঔষধ হিসাবে ভূমিকা পালন করছে। আর সে কারণেই ফরিদগঞ্জে দিন দিন বাড়ছে সূর্যমুখী ফুলের চাষ। উপজেলার ১৫ টি ইউনিয়ন, একটি পৌরসভায় প্রায় ৩০জন চাষি বারি-সূর্যমুখী-২ জাতের সূর্যমুখী ফুলের চাষ করেছেন। মাঠজুড়ে হলুদ ফুলের সমারোহ। ফুলের সৌন্দর্য দেখতে আসছেন দর্শনার্থীরাও।

জসিম উদ্দিন নামে ফুল দেখতে আসা এক দর্শনার্থী বলেন, ফুলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসেছি। এক সঙ্গে হাজারো সূর্যমুখী ফুটে আছে। খুব ভালো লাগছে। এখানে প্রতিদিন শত শত দর্শনার্থী আসেন ফুলের অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে। আমাদের বাসায় আত্মীয়-স্বজন এলে আমরা তাদেরকেও এই বাগান দেখাতে নিয়ে আসি।

কৃষক মোশারফ হোসেন বলেন, অন্য ফসলের চেয়ে খরচ কম, অধিক লাভ হওয়ার কারণে এই ফুলের চাষ করেছি। সার-ঔষধ কম লাগে। ফলে অধিক লাভবান হতে পারি। আমার চাষাবাদ দেখে আশপাশের কৃষকরাও এ ফুল চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে সারিবদ্ধভাবে বীজ বপন করা হয়। বীজ বপনের ৯৫ থেকে ১০০ দিনের মধ্যে ফসল তোলা যায়। সামান্য পরিমাণ রাসায়নিক সার ও দু’বার সেচ দিতে হয় এ ফসলে। এক একর জমিতে ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ হলেও প্রায় এক টন বীজ উৎপাদন হয়, এক টন বীজ ৮৫ থেকে ৯০ হাজার টাকা বিক্রয় করা যায়। সূর্যমুখী গাছ জ্বালানি হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

ফরিদগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আশিক বিন জামিল বলেন, ক্যান্সার ও হৃদরোগ প্রতিরোধী অধিক পুষ্টিগুণ সম্পন্ন সূর্যমুখী ফুল চাষ দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ফরিদগঞ্জ উপজেলায়। আমরা চাষিদের দিয়ে সূর্যমুখী ফুল চাষ করাচ্ছি তাদের সকল ধরনের সহযোগিতা করছি ফলে দিন দিন বাড়ছে সূর্যমুখী ফুল চাষ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর