বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন

পাকিস্তানের কাছে পাত্তাই পেল না অহংকারী ভারত

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৭৭ বার পঠিত
আপডেট : সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বকাপে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ে এর আগে কখনোই জিততে পারেনি পাকিস্তান। এবার পারল, তাও কি দারুণভাবে! বিরাট কোহলির দলকে কোনোরকম সুযোগ না দিয়েই দশ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়েছে বাবর আজমের পাকিস্তান। গড়ে ফেলেছে নতুন ইতিহাস।

পাক অধিনায়ক বাবর আজম ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছিলেন ভারতকে হারাতে হলে পাকিস্তানকে খেলতে হবে সেরা খেলাটাই। তার দল সেরা খেলাটাই খেলেছে। একেবারে ম্যাচের প্রথম ওভার থেকেই। পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদিকে সময়ের সেরাদের ছোট্ট তালিকায় রাখা হয়। সেই শাহিনই হানলেন প্রথম আঘাতটা।

শাহিনের মুখোমুখি হয়ে প্রথম বলেই শূন্য হাতে সাজঘরে ফেরেন রোহিত। সুবিধা করতে পারেননি ইনফর্ম ব্যাটসম্যান লোকেশ রাহুলও। আফ্রিদির দ্বিতীয় শিকার হন ৩ রান করে।

সূর্যকুমার যাদব ১১ রান করে আউট হলে দলীয় ৩১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে ভারত। সেখান থেকে দলকে টেনে তোলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও ঋষভ পান্ত। চতুর্থ উইকেটে দুজন যোগ করেন ৫৩ রান। শাদাব খানের বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে পান্ত ৩৯ রানে আউট হলে ভাঙে তাদের জুটি। সমান ২টি করে চার-ছক্কায় ৩০ বলের ইনিংসটি সাজান পান্ত।

পরে রবীন্দ্র জাদেজাকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন কোহলি। ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাট করে ৪৫ বলে ফিফটির স্বাদ পান ভারতীয় অধিনায়ক। এতে রেকর্ড বুকে জায়গা করেন নেন তিনি। মাহেলা জয়াবর্ধনেকে (৯) ছাড়িয়ে টি-টোয়েন্টিতে এখন সর্বাধিক ১০টি ফিফটি কোহলির দখলে। সে ইনিংসটি অবশ্য আর বড় করতে পারেননি কোহলি। আফ্রিদির তৃতীয় শিকার হন ৫৭ রানে। ৪৯ বল খেলে ৫টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন তিনি।

সুবিধা করতে পারেননি জাদেজা, হাসান আলীর দ্বিতীয় শিকার হন ১৩ রান করে। পরে হার্দিক পান্ডিয়া ১১ রান করে ফিরলে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রানের পুঁজি পায় ভারত। ইতিহাস গড়তে পাকিস্তানের প্রয়োজন পড়ে ১৫২ রান।

সে রান টপকে যায় ১০ উইকেট হাতে রেখেই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর