শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
আমিন কেরানী ফরিদগঞ্জের কাঁশারা সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদ্রসার সভাপতি নির্বাচিত বাকিলা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী জুলহাস মিয়ার মনোনয়নপত্র দাখিল ফরিদগঞ্জ আন-নূর জামে মসজিদের কার্যক্রম উদ্বোধন রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইলে খালেদা বিদেশ যেতে পারেন: হানিফ নাঈমকে চাপা দেওয়া গাড়ির মূল চালক গ্রেপ্তার সড়ক দূর্ঘটনায় প্রান গেল ৩ কলেজের শিক্ষার্থী কচুয়ায় বিআরটিসি-সিএনজির সংঘর্ষে ৩ কলেজ শিক্ষার্থী নিহত ও আহত- ৩ জন \ এলাকায় শোকের মাতম চাঁদপুরে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে ৩ কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যু দায়িত্ব নিয়েই পদত্যাগ করলেন সুইডেনের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী তেজগাঁও বহুতল ভবনে আগুন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের বিরুদ্ধে মামলা

প্রতিমা বিসর্জন দিয়ে শেষ হচ্ছে সনাতন ধর্মীয়দের প্রধান ধর্মীয় উৎসব

মেঘনার আলো ২৪ ডেস্ক / ৩৮ বার পঠিত
আপডেট : শুক্রবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৬ অপরাহ্ণ

প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে আজ শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘটবে। এদিন সকালে দর্পণ-বিসর্জনের মাধ্যমে বিদায় জানানো হবে দেবী দুর্গাকে। এরপর বিকেল ৪টা থেকে শুরু হবে প্রতিমা বিসর্জন।
করোনার কারণে এবছরও বিজয়ার শোভাযাত্রা হবে না। তাই পূজার সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রতিমা বিসর্জন করা হবে। আজ শুক্রবার জুমার নামাজ থাকায় নামাজের সময় দুপুরে বিসর্জন অনুষ্ঠান করা হবে না। বিকাল ৪টা থেকে শুরু হবে প্রতিমা বিসর্জন।
এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা উদযাপন করেছেন মহানবমী পূজা।
এদিকে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের প্রতিটি পূজামণ্ডপের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ, আনসার, র‌্যাব ও বিডিআর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। পুলিশ এবং র‌্যাবের পাশাপাশি প্রায় প্রতিটি মণ্ডপে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী দায়িত্ব পালন করছেন। ঢাকেশ্বরী মন্দির মেলাঙ্গনে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে।
উল্লেখ্য, চণ্ডীপাঠ, বোধন এবং দেবীর অধিবাসের মধ্য দিয়ে সোমবার (১১ অক্টোবর) থেকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে শুরু হয় দুর্গাপূজা। এবার সারা দেশে ৩২ হাজার ১১৮টি পূজামণ্ডপে দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ঢাকা মহানগরে পূজা হচ্ছে ২৩৮টি। যা গতবারের চেয়ে চারটি বেশি।
পুরাণ মতে, রাজা সুরথ প্রথম দেবী দুর্গার আরাধনা শুরু করেন। বসন্তে তিনি পূজার আয়োজন করায় দেবীর এ পূজাকে বাসন্তী পূজা বলা হয়। কিন্তু রাবণের হাত থেকে সীতাকে উদ্ধার করতে লংকা যাত্রার আগে শ্রী রামচন্দ্র দেবীর পূজার আয়োজন করেছিলেন শরৎকালের অমাবস্যা তিথিতে, যা শারদীয় দুর্গোৎসব নামে পরিচিত। দেবীর শরৎকালের পূজাকে এজন্যই হিন্দুমতে অকাল বোধনও বলা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর